উত্তরবঙ্গ

অ্যাপের মাধ্যেম জিপিএস ট্র্যাক করে সহজেই পৌঁছে যাবেন পূজা মন্ডপে। পূজার দিনগুলিতে আকাশ পথে চলবে নজরদারি।

শিলিগুড়ি, ১০ অক্টোবরঃ পূজা গাইড ম্যাপের উদ্বোধন করলেন শিলিগুড়ি মেট্রোপলিটন পুলিশের কর্তারা। এছাড়াও পূজা উপলক্ষ্যে বিশেষ অ্যাপ নিয়ে আসা হচ্ছে শিলিগুড়ি মেট্রোপলিটন পুলিশের পক্ষ থেকে। এই অ্যাপের মাধ্যমে শহরের প্রত্যেকটি পূজা মন্ডপ ঠিক কোথায় অবস্থিত এবং কিভাবে সেখানে যাওয়া যাবে, তা জানা যাবে। এমনকি জিপিএস ম্যাপ দেখেই পৌঁছে যাওয়া যাবে সেই মন্ডপে। পাশাপাশি অ্যাপের মাধ্যমে নানা সুবিধা পাবেন শহরবাসী। অ্যাপের মধ্যে এসওএস নম্বার থাকবে। কেউ বিপদে পড়লে ওই নম্বরে ফোন করলেই পুলিশ সঙ্গে সঙ্গে লোকেশন ট্র্যাক করে সেখানে পৌঁছে যাবে। প্রতিবছরের মত এবছরও শান্তিপূর্ণভাবে পূজা শেষ করার জন্য একাধিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা লাগু করেছে শিলিগুড়ি মেট্রোপলিটন পুলিশ।

এই বিষয়ে শিলিগুড়ির পুলিশ কমিশনার গৌরব শর্মা বলেন, “ আমরা এবছর একটি নতুন পুজো অ্যাপ নিয়ে আসছি, যা সাধারণ মানুষের জন্য অত্যন্ত ফলপ্রসু হবে। ইতিমধ্যেই আমরা সকল ব্যবস্থা সেরে ফেলেছি। গুগল প্লের অনুমোদনের জন্য অপেক্ষা করছি।”

এবছর দূর্গা পুজাতেও করোনার আতঙ্ক রয়েছে। তাই করোনা রুখতে গতবারের মত করোনা বিধি মেনেই করতে হবে পূজা মন্ডপে প্রবেশ। শহরজুড়ে একাধিক জায়গায় পুলিশি টহলদারি বাড়ানো হয়েছে। সাদা পোষাকের পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে প্রায় প্রতিটি বাজার এলাকায়। মহিলাদের সুরক্ষার জন্য বিশেষ বাহিনীর তৎপরতা বাড়ানো হয়েছে। মোতায়েন করা হয়েছে বাড়তি পুলিশ। কোনভাবেই যাতে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে সেদিকেও নজর রাখা হচ্ছে।

শিলিগুড়ির পুলিশ কমিশনার গৌরব শর্মা জানান, শিলিগুড়ি মেট্রোপলিটন এলাকায় মোট ৬১৮ টি পূজা হচ্ছে এবার। এর মধ্যে ১৮ টি বড় পূজা রয়েছে। এই সমস্ত পূজাকে নিয়ে শিলিগুড়ি মেট্রোপলিটন পুলিশের পক্ষ থেকে পূজার দিনগুলিতে সুরক্ষা এবং ট্র্যাফিক ব্যবস্থা ঢেলে সাজানো হয়েছে। মোট ১৮ টি পুলিশ অ্যাসিস্টেন্স বুথ করা হয়েছে। পূজার দিনগুলিতে মোট ১৬০০ পুলিশ কর্মী শিলিগুড়ি মেট্রোপলিটন এলাকায় দায়িত্ব সামলাবেন। এর মধ্যে ৩০০ জন পুলিশ আধিকারিক রয়েছেন। তার পাশাপাশি পূজার দিনগুলিতে আইন শৃঙ্খলা বজায় রাখতে এবং ট্র্যাফিক ব্যবস্থা সচল রাখতে সিভিক ভলান্টিয়ার এবং হোম গার্ড মিলিয়ে ৯০০ জন মোতায়েন থাকবেন। এর পাশাপাশি আরও ৪০০ জন টেম্পোরারি হোমগার্ড পূজার দিনগুলিতে কাজ করবেন। সেই সঙ্গে ৫০ টি মোবাইল ভ্যান ২৪ ঘন্টা ব্যাপী শিলিগুড়ি মেট্রোপলিটন এলাকায় নজরদারি চালাবে। শহর জুড়ে ট্র্যাফিক নো এন্ট্রি পয়েন্ট চিহ্নিত করে তা পূজা গাইড ম্যাপে দিয়ে দেওয়া হয়েছে। পূজার দিনগুলিতে পণ্যবাহী গাড়ি যাতায়াতের ক্ষেত্রে বেশ কিছু এলাকায় নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

মহিলাদের উত্যক্ত করা থেকে শুরু করে ছিনতাই চুরির মত ঘটনা রুখতে সাদা পোষাকের পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বিভিন্ন পূজা মন্ডপ এবং সংলগ্ন এলাকায়। শিলিগুড়ি মেট্রোপলিটন পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ এঁদের পরিচালনা করবেন। মহিলাদের সুরক্ষা এবং সহায়তার জন্য সাদা পোষাকে এবং খাকি পোষাকে প্রচুর মহিলা পুলিশও মোতায়েন করা হচ্ছে। এর পাশাপাশি ড্রোনের মাধ্যমে শিলিগুড়ির বিভিন্ন এলাকায় আকাশপথে নজরদারি চালাবে শিলিগুড়ি মেট্রোপলিটন পুলিশ। এই ড্রোনের সঙ্গে সরাসরি পুলিশ কন্ট্রোল রুমের যোগাযোগ থাকবে। পূজার দিনগুলিতে এই সমস্ত সুরক্ষা ব্যবস্থা সমন্বয়ের জন্য ৪ জন ডেপুটি কমিশনার র্যা ঙ্কিং অফিসার এবং ১ জন আডিশনাল ডেপুটি কমিশনার র্যা ঙ্কিং অফিসার নিয়োগ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন শিলিগুড়ির পুলিশ কমিশনার গৌরব শর্মা।